Are you want to buy this website. We want to sell this Website with this design & files.
 
English language
{:en}

Language:  Language is a human system of communication that uses arbitrary signals, such as voice sounds, gestures, or written symbols. Such as – Bangla / Bengali Language, English Language etc.

English Language: The language spoken by people in England or English is called the English language or English Language.

Grammar: The book teach us, the rules in a language for changing the form of words and joining them into sentences that the book is called grammar. Such as: – English Grammar, Bangla Grammar etc.

english

English Grammar: A book that teach us write, speak and read the English language purely, is called English Grammar.

Types of English Grammar

  1. Theoretical or Traditional Grammar
  2. Applied or General Grammar

Theoretical Grammar: The only part of the English vocabulary that discusses some of the most basic things is called Theoretical Grammar. Many call it Traditional Grammar. Because, this grammar is written or written only for those whose native language is English. Therefore, we do not always need these grammar.

Applied Grammar: Applied Grammar is the part of the English backbone that has a thorough discussion of the English language and the rules of each subject.

Applied Grammar’s Variations.

Applied Grammar is divided into five parts.

  1. Orthography- বর্ণপ্রকরণ।
  2. Etymology-শব্দ বা পদ প্রকরণ
  3. Syntax-বাক্য প্রকরণ
  4. Punctuation-বিরামচিহ্ন প্রকরণ
  5. Prosody-ছন্দ প্রকরণ

Orthography: The part of the English grammar where caste is discussed is called Orthography.

Etymology: Etymology is the part of the English grammar where the use of words or words is discussed.

Syntax: The part of the English grammar that discusses the use of sentences and sentences is called Syntax.

Punctuation: Punctuation is the part of the English grammar where punctuation is discussed.

Prosody: Prosody is the part of the English grammar that discusses rhythmic ornamentation.

—000 —-

{:}{:bn}

Language: মানুষ মনের ভাব প্রকাশের জন্য বাকযন্ত্রের সাহায্যে যেসব অর্থবোধক ধ্বনি বা ধ্বনিসমষ্টি উচ্চারণ করিয়া থাকে, তাহাকে ভাষা বলে। যেমন- বাংলা ভাষা(Bangla/Bengali Language), ইংরেজি ভাষা (English Language) ইত্যাদি।

English Language: ইংল্যান্ডের লোকেরা বা ইংরেজরা যে ভাষায় কথা বলিত, তাহাকে ইংরেজি ভাষা বা English Language বলা হয়।

Grammar: যে শাস্ত্র বা বই পাঠ করিলে ভাষা শুদ্ধরূপে লিখিতে, বলিতে ও পড়িতে পাড়া যায়, তাহাকে ব্যাকারণ বা Grammar বলা হয়। যেমন:- English Grammar, Bangla Grammar etc.

english

English Grammar: যে বই পড়িলে ইংরেজি ভাষা শুদ্ধরূপে লিখিতে, বলিতে ও পড়িতে পাড়া যায়, তাহাকে English Grammar বলা হয়।

English Grammar এর প্রকারভেদ।

  1. Theoretical or Traditional Grammar
  2. Applied or General Grammar

Theoretical Grammar: ইংরেজি ব্যাকারণের যে, অংশে শুধুমাত্র ত্বত্তীয় কিছু বিষয় সম্পর্কে আলোচনা করা হয়, তাহাকে Theoretical Grammar বলা হয়। এটিকে অনেকে Traditional Grammar ও বলে। কারণ, এই গ্রামারটি শুধু তাহাদের জন্য রচনা করা হয় বা লিখা হয়, যাহাদের মাতৃভাষা ইংরেজি। অতএব, এই ব্যাকারণের আমাদের সবসময় প্রয়োজন নেই বললেই চলে।

Applied Grammar: ইংরেজি ব্যাকারণের যে, অংশে ইংরেজি ভাষার শুধুরূপ এবং প্রত্যেক বিষয়ের নিয়মনীতি সুক্ষ্মভাবে আলোচনা করা হয়ে থাকে, তাহাকে Applied Grammar বলে।

Applied Grammar এর রূপভেদ।

Applied Grammar কে পাঁচটি অংশে ভাগ করা হয়।

  1. Orthography- বর্ণপ্রকরণ।
  2. Etymology-শব্দ বা পদ প্রকরণ
  3. Syntax-বাক্য প্রকরণ
  4. Punctuation-বিরামচিহ্ন প্রকরণ
  5. Prosody-ছন্দ প্রকরণ

Orthography: ইংরেজি গ্রামারের যে অংশে বর্ণ সম্পর্কে আলোচনা করা হয়ে থাকে, তাহাকে Orthography বলা হয়।

Etymology: ইংরেজি গ্রামারের যে অংশে শব্দ বা পদের ব্যবহার নিয়ে আলোচনা করা হয়, তাহাকে Etymology বলে।

Syntax: ইংরেজি গ্রামারের যে অংশে বাক্য ও বাক্যের ব্যবহার সম্পর্কে আলোচনা করা হয়, তাহাকে Syntax বলে।

Punctuation: ইংরেজি গ্রামারের যে অংশে যতি বা বিরাম চিহ্ন সম্পর্কে আলোচনা করা হয়, তাহাকে Punctuation বলে।

Prosody: ইংরেজি গ্রামারের যে, অংশে ছন্দ অলংকার সম্পর্কে আলোচনা করা হয়, তাহাকে Prosody বলে।

—000 —-

{:}